জরুরি নোটিশ:
যুগযুগান্তর পত্রিকার জন্য সারাদেশে জেলা ও উপজেলায় সংবাদ দাতা আবশ্যক।  মোবা: 01842268378 ইমেইল: nskibria2012@gmail.com
জনগণের বন্ধু’আমি

জনগণের বন্ধু’আমি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
‘মন্ত্রিপরিষদের সদস্য হিসেবে আমি মনে করি, দেশের সব জনগণেরই আমি বন্ধু। দেশের সকল মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধে সম্পৃক্ত মানুষ এবং স্বাধীনতার চেতনা লালনকারীরা আমার সবচেয়ে কাছের মানুষ।’

রোববার বিশ্ব বন্ধুত্ব দিবসের অনুভূতি জানতে চাইলে রাইজিংবিডিকে এসব কথা বলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, দেশের স্বাধীনতা অর্জনে মুক্তিযুদ্ধ করেছি। আল্লাহর অশেষ কৃপায় দুই দফায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করছি। মুক্তিযুদ্ধ এবং মুক্তিযোদ্ধা আত্মার সাথে মিশে আছে।

আ ক ম মোজাম্মেল হক মুক্তিযোদ্ধা, বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতা। স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় তিনি সশস্ত্র প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে গাজীপুরের প্রতিরোধ যুদ্ধে অংশ নেন। ১৯৭১ সালের ১৯ মার্চ বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে পাকিস্তানি ব্রিগেডিয়ার জাহান জেবের বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে নেতৃত্ব দেন।

বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী আ ক ম মোজাম্মেল হক। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি সক্রিয়ভাবে রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এক মেয়াদে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং দুই মেয়াদে সহ-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গাজীপুর মহকুমা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক। ১৯৭৬ সাল থেকে তিনি কখনো গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, কখনো সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

আ ক ম মোজাম্মেল হক স্থানীয় সরকার পরিচালনায় বিশেষ দক্ষতার স্বাক্ষর রেখেছেন। ১৯৭৩ থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত তিনি তিন বার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৯ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত চার বার পৌর চেয়ারম্যান ও মেয়র নির্বাচিত হন। বহুবার তিনি দেশের শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এবং ১৯৯৬ ও ২০০৩ সালে শ্রেষ্ঠ পৌর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

ঢাকা সদর উত্তর মহকুমার কার্যালয় (এসডিও অফিস) গাজীপুরে স্থানান্তর করা ও পরবর্তীতে গাজীপুর জেলা বাস্তবায়নেও ভূমিকা পালন করেন আ ক ম মোজাম্মেল হক।

২০০৮ সালে পৌর মেয়রের পদ থেকে পদত্যাগ করে গাজীপুর-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং ভূমি মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে তিনি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় জয় লাভ করে টানা দ্বিতীয়বার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন।

আ ক ম মোজাম্মেল হক শিক্ষা বিস্তার ও সমাজসেবামূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত। তিনি সরকারি সফরে এশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপের বহু দেশে ভ্রমণ করেছেন।

যুগযুগান্তর পত্রিকা. নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Jugjugantor24.com  
Design & Developed BY ThemesBazar.Com