জরুরি নোটিশ:
যুগযুগান্তর পত্রিকার জন্য সারাদেশে জেলা ও উপজেলায় সংবাদ দাতা আবশ্যক।  মোবা: 01842268378 ইমেইল: nskibria2012@gmail.com
সুপ্রিম কোর্টের কাশ্মীর বিষয়ে সময় নিয়ে কাজ করার নির্দেশ

সুপ্রিম কোর্টের কাশ্মীর বিষয়ে সময় নিয়ে কাজ করার নির্দেশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ছবি: সংগৃহীত

জম্মু-কাশ্মীরে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে ভারত সরকারকে সময় নিয়ে কাজ করতে নির্দেশ দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।
কাশ্মীরের এক আঞ্চলিক দলের করা পিটিশনের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট থেকে এই নির্দেশনা দেয়া হয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

গত ৫ আগস্ট ৩৭০ ধারা বাতিলের পর থেকেই ভারত সরকার নিরাপত্তা চাদরে মুড়ে অবরুদ্ধ করে রেখেছে জম্মু-কাশ্মীরকে। থমকে আছে যোগাযোগ ব্যবস্থাও।

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল ও দুইভাগ করে দেশটির সরকার সংসদে যে বিল পাস করেছে তা চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে গত শনিবার পিটিশন দাখিল করে কাশ্মীরের আঞ্চলিক দল ন্যাশনাল কনফারেন্স।

সোমবার আবেদনটির শুনানি শুরু হয়। সেই শুনানিতেই জম্মু-কাশ্মীরে প্রশাসনিক কড়াকড়ি শিথিল করা নিয়ে মঙ্গলবার কোনো রায় না দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে সরকারের ওপরই আস্থা রাখার কথা জানান।

আদালত বলেন, ‘জম্মু-কাশ্মীর ইস্যু খুবই সংবেদনশীল একটি বিষয়, তাই বিষয়টি নিয়ে সরকারকে সময় নিতে হবে। আমরা স্বাভাবিক অবস্থা প্রত্যাশা করি। কিন্তু এক রাতের মধ্যে সব কাজ করা যাবে না। কেউ জানে না কী হবে। সরকারের ওপরও কাউকে না কাউকে নির্ভর করতে হবে।’

পিটিশন দাখিলের তিনদিন পর সুপ্রিম কোর্টে এ নিয়ে প্রথম শুনানি হলো। প্রথম শুনানির পর আদালত পরবর্তী শুনানির দিন নির্ধারণে করেছেন দুই সপ্তাহ পর। গত ৫ আগস্টের পর যেসব আঞ্চলিক নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের মুক্তি দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

গত ১০ আগস্ট ন্যাশনাল কনফারেন্সের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টে পিটিশনটি দাখিল করেন দলটির জ্যেষ্ঠ নেতা ও সাংসদ মোহাম্মদ আকবর লোন এবং হাসনাইন মাহসুদ। পিটিশনে বলা হয়, ‘সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মাধ্যমে কাশ্মীর বিশেষ মর্যাদা রদের সরকারি সিদ্ধান্ত অবৈধ।’

গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় কাশ্মীর সংক্রান্ত সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের বিলটি পাস হয়। তার আগের রাতে কাশ্মীরের সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ও ওমর আবদুল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়। ওমর আবদুল্লাহ ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রধান।

পিটিশনতে বলা হচ্ছে, ‘সংবিধানের ৩৭০ (১) (ঘ) অনুচ্ছেদে জম্মু-কাশ্মীরের সংবিধানকে পাইকারিভাবে পুনস্থাপিত করার কোনো ক্ষমতা দেয়া হয়নি।’ সুপ্রিম কোর্টকে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে অনুরোধ করা হয়েছে।

পিটিশন অনুযায়ী, রাজ্যের মানুষ এবং তাদের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের (কাশ্মীরের বিধানসভা) সঙ্গে আলোচনা ও কোনো ধরনের সম্মতি না নিয়েই জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা একতরফাভাবে রদ করা হয়েছে। যার মাধ্যমে মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার এবং স্বাধীনতাকে সামান্যতম মূল্যায়ন করা হয়নি।

যুগযুগান্তর পত্রিকা. নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Jugjugantor24.com  
Design & Developed BY ThemesBazar.Com