জরুরি নোটিশ:
যুগযুগান্তর পত্রিকার জন্য সারাদেশে জেলা ও উপজেলায় সংবাদ দাতা আবশ্যক।  মোবা: 01842268378 ইমেইল: nskibria2012@gmail.com
আরো মনোযোগী হোন বন সংরক্ষণে : বীর বাহাদুর

আরো মনোযোগী হোন বন সংরক্ষণে : বীর বাহাদুর

রাঙামাটি সংবাদদাতা : বনায়ন ও বন সংরক্ষণে আরো বেশি মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ দিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়কমন্ত্রী বীর বাহাদুর বলেন, বন বাঁচলে পানি ঠিকবে, বাঁচবে জীববৈচিত্র্য।

তিন পার্বত্য জেলায় অবাধে বৃক্ষনিধণের ফলে ভবিষ্যতে পানি সংকট প্রকট আকার ধারণ করতে পারে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

শনিবার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের হলরুমে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের আয়োজনে ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে টেকসই পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা’ বিষয়ক দিনব্যাপী সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার।

মন্ত্রী বলেন, ‘‘পার্বত্যাঞ্চলে পানিসংকট তীব্র পর্যায়ে চলে যাচ্ছে। এখন থেকে উদ্যোগী না হলে ভয়াবহ দিন অপেক্ষা করছে। নিজেদের বাঁচাতে হলে, এখন থেকে সচেতন হতে হবে। বনায়নে মনোযোগী হতে হবে, বনাঞ্চল সংরক্ষণে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। বন না থাকলে, পানিও থাকবে না আর পানি না থাকলে প্রাণীকূলের বিলুপ্তি ঘটবে।’’

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী পার্বত্যাঞ্চলের যেকোনো বিষয়ে খুবই আন্তরিক। তার আন্তরিকতায় পার্বত্যাঞ্চলের পানি সংকট দূরীকরণে বন সংরক্ষণসহ বিভিন্ন প্রকল্প নেয়া হয়েছে।

এ অঞ্চলে সরকারের নেয়া বিভিন্ন জনহিতকর কাজে বাধাদানকারী আঞ্চলিক দলগুলোর উদ্দেশে বীর বাহাদুর বলেন, ‘‘সরকারের উন্নয়ন কাজে বার বার বাধা দিতে থাকলে সরকারও বসে থাকবে না, তখন আর কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। শান্তিচুক্তির পর যেসব অস্ত্রের কথা শোনা যাচ্ছে, সবই অবৈধ এবং যারা ব্যবহার করছে, তারা সন্ত্রাসী। সুতরাং কোনো ছাড় নয়।’’

তিনি প্রশ্ন করেন, ‘‘এসব অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে এত চাঁদা তোলেন, কোনোদিন শুনিনি পাহাড় ধস বা বন্যায় আক্রান্ত অথবা গরিব-দুঃখীদের পিছনে বা জনকল্যাণে ব্যয় করেছেন।’’

রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে ড্রেজিংয়ের বিষয়ে সাংবাদিকেদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, কাপ্তাই লেক, মাতামুহুরী নদী ও সাঙ্গু নদী ড্রেজিং হবে। তবে এখানে মৎস্য এবং বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট রয়েছে, তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে হবে। তিনি আশা করেন ড্রেজিং শিগগিরই শুরু হবে।

সেমিনারে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরার সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাহুল ইসলাম প্রমুখ।

সেমিনারে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, মিডিয়াকর্মী, এনজিও প্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিতি ছিলেন।

যুগযুগান্তর পত্রিকা. নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Jugjugantor24.com  
Design & Developed BY ThemesBazar.Com