জরুরি নোটিশ:
যুগযুগান্তর পত্রিকার জন্য সারাদেশে জেলা ও উপজেলায় সংবাদ দাতা আবশ্যক।  মোবা: 01842268378 ইমেইল: nskibria2012@gmail.com
বাড়ি ফেরা শুরু: বিলম্বে তিন ট্রেন

বাড়ি ফেরা শুরু: বিলম্বে তিন ট্রেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ট্রেনে ঈদযাত্রা শুরু হয়েছে। ঘরে ফিরছেন মানুষ। আজ থেকে ট্রেনে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে ঈদযাত্রা।

যারা গত ৮ আগস্ট লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কিনেছিলেন, আজ তারা বাড়ি ফিরছেন। বাড়ি ফেরার জন্য পরিবার পরিজন নিয়ে সকাল থেকেই আসতে থাকেন কমলাপুর রেলস্টেশনে। অপেক্ষা করতে থাকেন নির্ধারিত ট্রেনের জন্য। প্ল্যাটফর্মগুলোতে অন্য সময়ের চেয়ে যাত্রীর ভিড় আজ অনেক বেশি। ভিড় বেশি উত্তরবঙ্গগামী ট্রেনেগুলোতে। ট্রেন প্লাটফর্মে আসার সঙ্গে সঙ্গে মুহূর্তেই পূর্ণ হয়ে যায় আসনগুলো।

৫ নম্বর প্ল্যাটফর্মে উত্তরবঙ্গের চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি যখন এসে দাঁড়ায়, নিমিষেই যাত্রীতে পূর্ণ হয়ে যায়। সকাল ৮টায় ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও ছাড়তে বেশ বিলম্ব হয়।

ঈদযাত্রার শুরুতেই নির্ধারিত সময়ের চেয়েও বিলম্বে কমলাপুর স্টেশন থেকে তিনটি ট্রেন ছাড়ে।

জামালপুর দওয়ানগঞ্জ অভিমুখী তিস্তা এক্সপ্রেস শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টায় ছাড়ার কথা থাকলেও এটি কমলাপুর স্টেশন ছেড়ে যায় সকাল পৌনে ৯টায়। উত্তরবঙ্গের চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস সকাল ৮টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও এটি কমলাপুর ছেড়ে যায় ৯টা ১০ মিনিটে।

খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস সকাল ৬টা ২০ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও সেটা ৭টায় ছেড়ে গেছে। সব মিলিয়ে ঈদযাত্রার শুরুতেই কমলাপুর থেকে বিলম্বে ছেড়েছে তিনটি ট্রেন।

জানা গেছে, আজ সাড়া দিনে কমলাপুর স্টেশন থেকে ছেড়ে যাবে ৫৯টি ট্রেন। এরমধ্যে সকাল ১০টা পর্যন্ত ১৬টি ট্রেন ছেড়ে গেছে যার মধ্যে তিনটি বিলম্বে ছেড়ে যায়।

টিকিট কেনা থেকে শুরু করে বাড়ি যাওয়া ও আবার ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা পর্যন্ত চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় সাধারণ মানুষের।তাই কর্তৃপক্ষের প্রতি যাত্রীদের অনুরোধ ট্রেন ছাড়ার ক্ষেত্রে সিডিউল বিপর্যয় যাতে না হয় সে বিষয়ে আস্তরিক হওয়া।

জুবায়ের আহমেদ নামের এক যাত্রী বলেন, প্রায় ১১ থেকে ১২ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে আজকের এই টিকিট কেটেছিলাম কিন্তু ট্রেন আসার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীদের এতোটাই চাপ যে খুব কষ্ট করে ট্রেনে উঠতে হয়েছে। ভিড়ের কারণে সিট পর্যন্ত পৌঁছাতে পারব কি না তা নিয়ে রয়েছে সংশয়।তারপর আবার ট্রেন ছাড়তে দেরি হচ্ছে। আমাদের দুর্ভোগের শেষ নেই।

কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ঈদে ঘরে ফেরা মানুষ যেমন সুশৃংখলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করেছেন। ঠিক তেমনি সুশৃংখলভাবে চলাচল করতে পারবেন বলে আশা করি। যাত্রী চাপ মাথায় রেখে আমরা প্রতিটি ট্রেনেই কম বেশি বগি সংযুক্ত করেছি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনের ছাদে, বাফারে যাতায়াত না করার অনুরোধ করেন তিনি।

বিলম্বে ছেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ট্রেনগুলো বিলম্ব করে কমলাপুরে আসার কারণে ছেড়ে যেতে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। ঈদের সময় অতিরিক্ত যাত্রী থাকে যে কারণে আসা যাওয়ার সময় ওঠা- নামায় প্রতিটি স্টেশনেই অতিরিক্ত সময় ব্যয় হয় যে কারণে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। তবে আমরা সব সময় চেষ্টা করছি সঠিক সময়ে ট্রেন ছাড়ার।

এদিকে নির্ধারিত নিয়মিত ট্রেন ছাড়াও আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে ঈদের বিশেষ ট্রেন। এবারের ঈদযাত্রায় যাত্রীদের সুবিধার্থে ৯ জোড়া বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে।

যুগযুগান্তর পত্রিকা. নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Jugjugantor24.com  
Design & Developed BY ThemesBazar.Com