জরুরি নোটিশ:
যুগযুগান্তর পত্রিকার জন্য সারাদেশে জেলা ও উপজেলায় সংবাদ দাতা আবশ্যক।  মোবা: 01842268378 ইমেইল: nskibria2012@gmail.com
যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনে আসবে: মনে করেন কাদের

যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনে আসবে: মনে করেন কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক,গণভবনে যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে বৈঠকে ওবায়দুল কাদের ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপ পজেটিভ হয়েছে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তাদের খুবই পজেটিভ বলে মনে হয়েছে। নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে তারা অত্যন্ত গঠনমূলক ও ইতিবাচক কথা বলেছেন। এতে আমরা মনে করছি তারা নির্বাচনে আসবেন।

শুক্রবার রাতে সংলাপ শেষে প্রধানমন্ত্রীর সরকারী বাসভবন গণভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কিছু কিছু বিষয়ে তারা দাবি হিসাবে এনেছেন, তাতো আমরা মেনে নিয়েছি। সব দাবিতো আর মানা যাবে না। এখনে সংবিধান সংশোধনের সঙ্গে কিছু দাবি জড়িত। তবে তাদের ধন্যবাদ দিতে হবে যে সংবিধানে সংশোধন কিংবা পরিবর্তন করতে হবে এমন কোনো মেজর দাবি তাঁরা করেননি।’

‘তাদের আলোচনা থেকে এই সুরই স্পষ্ট হয়েছে যে তাঁরা সরকার পরিবর্তন কিংবা নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে জোর কোন দাবি উত্থাপন করেনি। আমাদের কাছে মনে হয়েছে তারা হ্যাপি’ বলেন কাদের।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সংলাপ সৌহার্দ্যপূর্ণ, ঘটনমূলক ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী সবার বক্তব্য শুনেছেন। এখানে উভয়পক্ষ মিউচুয়াল হলো মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় একসুরে। তাদের একজন ছাড়া ২০জনই কথা বলেছেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ছাড়া শুধু আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ ও মঈনুদ্দিন খান বক্তব্য দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী তাদের দেয়া দাবির অনেকগুলোই মেনে নিয়েছেন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, যেমন নির্বাচনে সকলের জন্য সমান সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। তাঁরা বলেছেন সংসদ হয় ভেঙ্গে দিতে হবে নাহয় নিষ্ক্রিয় করতে হবে। আমাদের নেত্রী পরিষ্কারভাবে বলেছেন সংসদের শেষ সেশন হয়ে গেছে, তাই এটি নিষ্ক্রিয় হয়ে আছে। নির্বাচনের যখন শিডিউল ঘোষণা হবে আমাদের সবাইকে নির্বাচনী আচারণবিধি মেনে চলতে হবে।

‘তাদের দ্বিতীয় দফা দাবি পুরোটাই মেনে নেয়া হয়েছে। এছাড়াও তৃতীয় দফা দাবির আংশিক মেনে নেয়া হয়েছে। তা হলো নির্বাচনে সকল প্রকার নিরপেক্ষতা বজায় রাখার উদ্দেশ্যে নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকার অথবা বর্তমান সরকারের নির্বাচন বিষয়ে সম্পূর্ণ ক্ষমতা সীমিত করার বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি। সীমিত অলরেডি হয়ে গেছে ‘

ওবায়দুল কাদের জানান, সংলাপে নির্বাচনে সেনা মোতায়েন করার দাবি উত্থাপন করেছে যুক্তফ্রন্ট। এর উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘সেনাবাহিনী নিয়ে অনেক বির্তক হয়েছে। সেনাবাহিনীর ভূমিকার জন্য সারাবিশ্বে শান্তিরক্ষী বাহিনীতে যোগ দিয়ে প্রশংসিত হয়েছে। আমাদের দেশেও সংকটে দুর্যোগে তাদের অবদান অসামান্য। এই সেনাবাহিনীকে যত্রতত্র ব্যবহার না করাই ভালো। সেনাবাহিনী অবশ্যই নিয়োজিত হবে। তবে তা হলো তারা স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসাবে নিয়োজিত থাকবে।

নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার সঠিক হবে না যুক্তফ্রন্টের এমন দাবির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে তা সংসদে পাশ হয়নি। এটা মন্ত্রীসভার সিদ্ধান্ত. মাহামান্য রাষ্ট্রপতি অধ্যাদেশ জারি করেছেন। এখন নির্বাচন কমিশন এই সময়ের মধ্যে কতটা ইভিএম ব্যবহারে ভূমিকা রাখতে পারবে সেটা একবারে পরিষ্কার নয়, হয়তো সীমিত আকারে ব্যবহারের চিন্তাভাবনা নির্বাচন কমিশনের থাকতে পারে। তারপরও যুক্তফ্রন্ট নেতাদের বিশেষ অনুরোধে প্রধানমন্ত্রী এটা নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবেন। সেই জন্য আমরা এই নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার সঠিক হবে না বলে মনে করি।

যুগযুগান্তর পত্রিকা. নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Jugjugantor24.com  
Design & Developed BY ThemesBazar.Com