জরুরি নোটিশ:
যুগযুগান্তর পত্রিকার জন্য সারাদেশে জেলা ও উপজেলায় সংবাদ দাতা আবশ্যক।  মোবা: 01842268378 ইমেইল: nskibria2012@gmail.com
মধুমাসে জমে উঠেছে ফলের বাজার

মধুমাসে জমে উঠেছে ফলের বাজার

আখাউড়া প্রতবিদেক :
এখন মধু মাস। আম,কাঁঠাল, লিচু জাম আর আনারসের মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত হয়ে উঠেছে চারদিক। এরইমধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ফলের বাজার জমে উঠেছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আম, কাঁঠাল, লিচু, জাম, লটকন, বাঙ্গি আনারসসহ হরেক রকমের ফল বিক্রি হচ্ছে।
বাজারে প্রতি কাঁঠাল ৫০ থেকে ২৫০ টাকা, ১ হালি আনারস ১২০ থেকে ২০০ টাকা ও আম প্রতি কেজি ৬০-৯০ টাকা, ১শ’ লিচু ১৮০ থেকে ২৩০ টাকা জাম প্রতি কেজি ৬০ থেকে ৭০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। উপজেলার আজমপুর, চানপুর, আনোয়ারপুর, কল্যাণপুর, দুর্গাপুর, হিরাপুর, আবদুল্লাপুর, বাউতলা, তুলাইশিমুল, খারকোট, মিনারকোট, মনিয়ন্ধসহ বিভিন্ন এলাকায় চাষিরা ওইসব ফলের এক নিরব বিপ্লব ঘটিয়েছে। বর্তমান ফলের ভরা মৌসুম হওয়ায় ওইসব এলাকার শতশত লোক গাছ থেকে ফল পেরে বাজারজাত করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন।
ফল বিক্রেতা মো. মহসিন মিয়া বলেন, এখন ফলের মৌসুম থাকায় আম ও লিচু কেনা হয়। তবে দাম অনেকটা বেশি বলে মনে হয়।
গৃহিণী ফাতেমা বেগম বলেন, মৌসুমী ফল মেয়ের বাড়িতে দেয়ার জন্য ২টা কাঁঠাল, ১হালি আনারস, ৫ কেজি আম কেনা হয়। মনে হচ্ছে গত বছরের চেয়ে দাম বেশি।

উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের চাষি ফরিদ মিয়া বলেন, গত ১ সপ্তাহ থেকে কাঁঠাল, আম ও জাম বিক্রি শুরু হয়েছে। বিক্রিতে ভালই লাভ হচ্ছে বলে জানায়।

উপজেলার রাজাপুর এলাকার কাঁঠাল চাষি মো. তাজু ভূইয়া বলেন, আমার ৩টি কাঠাল বাগানে ৮০টি গাছে ফলন ভাল হয়েছে। গত এক সাপ্তাহ পূর্বে থেকে কেনা বেচা শুরু হয়েছে। এপযর্ন্ত ১৫ হাজার টাকার কাঁঠাল বিক্রি করা হয়। নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে ও যাবতিয় খরচ বাদে ৬০ হাজার টাকারও বেশী আয় হবে বলে জানায়।

আখাউড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো.একরাম হোসেন বলেন, এ মৌসুমে আম, লিচু, কাঁঠালের ফলন ভাল হয়েছে। ফলন ভাল করতে সব সময় স্থানীয় চাষিদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

যুগযুগান্তর পত্রিকা. নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Jugjugantor24.com  
Design & Developed BY ThemesBazar.Com